মলনুপিরাভির: টিকার বিকল্প নয় মুখে খাওয়ার ঔষধ

অনুষ্ঠিত একটি সংবাদ সম্মেলনে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।   দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ওষুধ কোম্পানি এসকেএফকে এ ওষুধের অনুমোদন পেয়েছে। সেই সঙ্গে ওষুধ কোম্পানি বেক্সিমকোকেও এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মলনুপিরাভির:  টিকার বিকল্প নয় মুখে খাওয়ার  ঔষধ
সংগৃহীত ছবি

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) রাজধানীর ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে অনুষ্ঠিত একটি সংবাদ সম্মেলনে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ওষুধ কোম্পানি এসকেএফকে এ ওষুধের অনুমোদন পেয়েছে। সেই সঙ্গে ওষুধ কোম্পানি বেক্সিমকোকেও এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

 

মাহবুবুর রহমান বলেছেন, এ পর্যন্ত বেক্সিমকো এবং এসকেএফকে মলনুপিরাভির জরুরি বাজারজাতের অনুমোদন প্রদান করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও আটটি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অনুমোদনের তালিকায় রয়েছে।

 

বেক্সিমকো ফার্মার চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) রাব্বুর রেজা বলেছেন, প্রতিটি ট্যাবলেটের বাজার মূল্য ৭০ টাকা। চিকিৎসকের পরামর্শে ১৮ বছরের বেশি বয়সী করোনা আক্রান্ত রোগীকে সংক্রমণ প্রতিরোধে ৪০টি ট্যাবলেট খেতে হবে। এটির বাজার মূল্য হবে ২ হাজার ৮০০ টাকা।

 

রাজধানীর ১৫০টি ফার্মেসিতে সোমবার (৮ নভেম্বর) এ ওষুধ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন বিভাগে মঙ্গলবার পাঠানো হবে উল্লেখ্য করে রাব্বুর রেজা বলেছেন, করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যানের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন স্থানে এ ওষুধ পাঠানো হবে। যে সকল এলাকার আক্রান্তের সংখ্যা বেশি, সেই সব এলাকায় এ ওষুধ পাঠানো