বিকাশ একাউন্ট বন্ধ বা ডিলিট করার উপায় ২০২২ । How to Delete Bkash Account 2022

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম | How To Permanently Delete bKash Account | How to Closing Bkash Account

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ বা ডিলিট করার উপায় ২০২২ । How to Delete Bkash Account 2022
বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

আমরা সকলেই জানি যে বিকাশ একটি জনপ্রিয় এবং বহুল পরিচিত মোবাইল ব্যাংকিং  সেবা ( Mobile Banking Service)। এর মাধ্যমে আমরা দেশের যে কোন জায়গা থেকে টাকা লেনদেন করা যায়। আমাদের মধ্যে অনেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম জানলে ও কিভাবে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে হয় ( How to Deactivate Bkash Account?) তা জানিনা।

আজকেই এই লিখাটি কিভাবে বিকাশ একাউন্ট  বন্ধ করতে হয় ( How to Deactivate Bkash Account?) সে বিষয়ে জানাবে। আশা করি আপনারা পোস্টটি পড়ে সমস্ত বিষয়টি বুঝাতে পারবেন।

এই লিখাটি থেকে আপনারা নিম্নলিখিত বিষয় গুলি জানতে পারবেনঃ

    • কেন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করবেন?(Reasons for Bkash account Deactivation)
    • এটি বন্ধ করতে কি কি লাগে?( What do you need to deactivate your Bkash account?)
    • বিকাশ একাউন্ট বন্ধের আগে কি কি করতে হয়?( What to do before deactivation?)
    • বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম(( How to Deactivate Bkash Account?)
    • কারা বন্ধ করেন? ( Who needs to deactivate BKash account?)

আসুন ধাপে ধাপে জানা যাকঃ

১.কেন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করবেন?(Reasons for Bkash account Deactivation)

বিভিন্ন কারণে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার প্রয়োজন হতে পারেন। আপনি আজকের পোস্টটি পড়লেই বুঝতে পারবেন যে কেন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করা লাগতে পারে, এবং আজকের পর আপনার ও মনে হতে পারে, যে আপনার আর বিকাশ লাগবেনা , তো আপনি ও আজকেই এই পোস্টটি পড়ার পর এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন, তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কারণগুলো ,

    • বিদেশে গমন করা হলে ( Staying in foreign country)
    • যদি ও বিদেশ থেকে বিকাশে টাকা পাঠানো সম্ভব তবে তা অনেক ঝামেলার। বিদেশে তো দেশি সিম সরাসরি চলেনা , এইজন্য বিদেশে *২৪৭# লিখে ডায়াল করলে বিকাশ মেন্যু চালু হয়না এবং বিকাশ ও চালানো যায় না। এমনকি বিকাশ অ্যাপ ও চালানো যায় না। এমতাবস্থায় বিকাশ একাউন্ট  চালু না রাখাই ভালো।  আর বিদেশ থেকে বিভিন্ন একচেঞ্জ হাউসের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করা যায়। তাহলে আপনার যদি বিদেশে যাওয়ার কোন প্ল্যান থাকে তাহলে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে দেওয়াই ভাল হবে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

  • বন্ধ সিম( Off Sim)
  • আপনি নতুন একটি সিম নিতে চাচ্ছেন, যেমন আপনি এতদিন জিপি সিম ইউজ করতেন এখন আপনি টেলিটকে মাইগ্রেট করতে চাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে আপনার জিপিতে যদি কোন বিকাশ একাউন্ট থেকে থাকে  তাহলে তা অফ করে টেলিটক সিমে মাইগ্রেট করতে হবে। আপনি তো আগের সিম আর ইউজ করবেন না তাই সে সিমে ভুলে ও যাতে কোন লেনদেন না হয় তাই আগেই মনে করে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে নিতে হবে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)
    • ফোন নাম্বার পরিবর্তন হলে ( Changed Phone Number)
    • বিকাশ হল ফোন নির্ভর একটি সেবা। এর কার্যকলাপ ফোন নাম্বারের উপর নির্ভর করে। তাই ফোন নাম্বারের দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে, ফোন নাম্বার পরিবর্তন হলে সাথে সাথে আগের সিমের নাম্বারে ওপেন থাকা বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে ফেলতে হবে , তা না হলে অনেক সময় ভুল লেনদেনের দরুন টাকা মার যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম ( c)

  • একের অধিক একাউন্ট থাকা ( So many account)
  • এমন হতে পারে আপনার একাধিক একাউন্ট আছে, সে ক্ষেত্রে একাধিক একাউন্ট মেইনটেইন করা খুব ঝামেলার। বা এমন ও হতে পারে আপনার অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিসে যেমন, রকেট ,নগদ,  একাউন্ট আছে, এখন আপনার জন্য এত গুলো একাউন্ট চালান খুবই প্রেশারের হয়ে যাচ্ছে।  সে ক্ষেত্রে আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করা লাগতে পারে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

 

    • প্রতারণা থেকে বাচার জন্য ( Escape cheating)
    • বিকাশে অনেক সময় মানুষ প্রতারণার শিকার হয়, সে ক্ষেত্রে অযথা একাউন্ট খুলে না রেখে বন্ধ করে দেওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ। তাই যে একাউন্ট সেভাবে ইউজ হয়না সেটি বন্ধ করে ফেলাই ভাল। এতে আপনি অন্তত রিস্কফ্রি থাকবেন কিছুটা হলে ও। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

আরো পড়ুন

রবি থেকে বাংলালিংকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার

আজকে বিকাশ রেফারে মেগা পুরস্কার ২০২২

  •  নতুন একাউন্ট খোলা ( New Account)
  • আপনি যদি নতুন সিম নেন তো এইটা স্বাভাবিক যে আপনি নতুন সিমে নতুন একাউণ্ট খুলতে যাবেন। সেক্ষেত্রে আপনি আগের সিমের ওপেন করা বিকাশ একাউন্ট নিশ্চয়ই বন্ধ করবেন, যাতে কোন ভুল্ভাল লেনদেনের চক্করে আপনার টাকা নষ্ট না হয়। এছাড়া এমন হতে পারে যে আপনি আর বিকাশ একাউন্ট চালাবেন না অন্য কোন সার্ভিসে ,যেমনঃ নগদ বা রকেটে সুইচ করবেন, সেখানে নতুন একাউন্ট খুলবেন । তাহলে এখন আর বিকাশ কাজে লাগছে না , তাই আপনি বিকাশ বন্ধ করে দিতে চাচ্ছেন । বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

২. বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে কি কি লাগে?(  What do you need to deactivate your Bkash account?)

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে আপনার কিছু জিনিসের দরকার হবে, সেগুলো হলঃ

    1. আপনি যে নাম্বার দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন, সেই সিম সহ ফোন নিয়ে বিকাশ অফিসে যেতে হবে। যদি সে সিম হারিয়ে ও যায় সেই সিম তুলে তারপর অফিসে যেতে হবে। এই সিম ই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ।

  1. বিকাশ একাউন্ট খোলার সময় যে এনআইডি কার্ড ( NID Card) ইউজ করা হয়েছিল, সেই কার্ড লাগবে, এমন যদি হয় আপনি আপনার পরিচিত কারোর এনআইডি কার্ড ( NID Card) দিয়ে বিকাশে একাউন্ট খুলেছিলেন , সে ক্ষেত্রে উক্ত ব্যক্তিকে তার এনআইডি কার্ড ( NID Card) সহ বিকাশের অফিসে যেতে হবে।
  2. আপনি যদি বিকাশ একাউন্ট খোলার সময় অন্য কোন ডকুমেন্ট দিয়ে থাকেন, সে ক্ষেত্রে একাউন্ট বন্ধের সময় উক্ত কাগজ যেমনঃ ড্রাইভিং লাইসেন্স( Driving License), ট্রেড লাইসেন্স ( Trade License), এসব কাগজ পত্র সাথে করে নিয়ে যেতে হবে।
  3. এখন অবশ্য বলা হয়ে থাকে যে সিম কেনার সময় যে এনআইডি কার্ড ( NID Card) ইউজ করে কেনা হয়েছিল,সেই এনআইডি কার্ড ( NID Card) ও সাথে করে নিয়ে যেতে ।

বিকাশ একাউণ্ট বন্ধ করতে হলে আগে উপরিক্ত কাগজ পত্র গুলো সংগ্রহ করে নিয়ে বিকাশ অফিসে যেতে হবে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

৩. বিকাশ একাউন্ট বন্ধের আগে কি কি করতে হয়?( What to do before deactivation?)

বিকাশ একাউন্ট বন্ধের আগে অবশ্যই প্রয়োজনীয় কাগজপত্র একত্র করুন। তারপর যে একাউন্ট বন্ধ করবেন, তার ব্যালেন্স শূন্য করে ফেলতে হবে। আপনি নানাভাবে ব্যালেন্স শূন্য করতে পারেন। সবচেয়ে সহজ এবং ভাল উপায় হল ক্যাশ আউট করে ফেলা। এটি না করতে চাইলে আপনি আপনার পরিচিত এবং বিশ্বস্ত কারোর একাউন্টে সেন্ড মানি করে রাখতে পারেন, তারপর আপনার সুবিধা মত ক্যাশ আউট করে নিতে পারবেন। তবে একাউণ্ট বন্ধ করার আগে অবশ্যই উক্ত একাউন্টের ব্যালেন্স শূন্য করে নিতে হবে। এটি যেন ভুল না হয় খেয়াল করবেন। বিকাশ একাউন্ট বন্ধের নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

৪. বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

উপরিক্ত সমস্ত তথ্য ঠিকভাবে অনুসরণ করা হয়ে গেলে এখন আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার জন্য প্রস্তুত। এখন শুধু প্রয়োজনীয় কাগজ প্ত্র নিয়ে আপনাকে বিকাশ সেন্টারে যোগাযোগ করতে হবে এবং আপনি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে চাচ্ছেন তা জানাতে হবে। এরপর আপনাকে যা যা কাগজ পত্র দরকার তা দিয়ে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারের এজেন্টকে সহায়তা করতে হবে, যাতে সফলভাবে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে পারেন।

আপনি আপনার নিজের এন আইডি কার্ড ইউজ করে বিকাশ বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে পারেন বা একাউন্ট খুলতে যার কার্ড ইউজ করেছিলেন তার কার্ড নিয়ে যেতে হবে ,সাথে তাকেও নিয়ে যেতে হবে। আপনি নতুন কার্ড দিয়ে একাউণ্ট খুলতে চাইলে তা ও জানাতে হবে সেন্টারে।

আপনাকে অবশ্যই অন্যান্য কাগজ প্ত্র সাথে নিয়ে যেতে হবে, যেগুলো আপনি বিকাশ একাউন্ট খোলার সময় দিয়েছিলেন।

আপনি যদি নতুনভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান তাহলে নতুন ফোন নাম্বার নিয়ে যেতে পারেন, তাহলে একত্রে দুই কাজ হয়ে গেল।

এই কাজ গুলি করার জন্য নিকটস্থ বিকাশ সেন্টারে যেতে হবে, এর ঠিকানা জানতে চাইলে আপনাকে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে কল দিতে হবে, বিকাশ কাস্টমার নাম্বার হল, ১৬২৪৭ ,এই নাম্বারে কল দিয়ে কথা বলতে হবে। তাহলে আপনাকে তারা নিকটস্থ বিকাশ সেন্টারের ঠিকানা বলে দিবে।

উপরিক্ত বিষয় গুলো অনুসরণ করলে আপনি সহজেই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে পারবেন।

আরো পড়ুন

রবি থেকে বাংলালিংকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার

আজকে বিকাশ রেফারে মেগা পুরস্কার ২০২২

৫. কারা বিকাশ একাউন্ট  বন্ধ করেন? ( Who needs to deactivate  BKash account?)

যারা মুলত প্রবাসী , বা খুব শীঘ্রই দেশ থেকে চলে যাবেন , তারাই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে থাকেন। এছাড়া যারা আর বিকাশ সেবা নিতে চাচ্ছেন না অন্য কোন মোবাইল ব্যাংকিং সেবা নিতে চাচ্ছেন তারা বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে থাকেন। বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম( How to Deactivate Bkash Account?)

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনাদের  বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য যথেষ্ট সাহায্য করবে। পোস্টটি কেমন লাগলো তা জানাতে ভুলবেন না।